Amardesh Online......................
আজ রবিবার, ১৬ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৯ জানুয়ারী ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ
চিরস্থায়ী বাংলা ক্যালেন্ডার
ধেয়ে আসছে সুপারবাগ মহামারি
92nd Prizebond Draw, 31 Jul 2018

Pregnancy Care
Check your IP
Public Universities
Private Universities
Intl. Universities in BD
350 MP List
Local E-Commerce Sites
Banks in Bangladesh
Bangladesh Post Codes
Airlines in Bangladesh
Shahjalal Airport Arrival
Shahjalal Airport Departure
Osmani Airport Arrival
Osmani Airport Departure

৩০ জানুয়ারী: ইতিহাসের এই দিনে-

ঘটনাবলী

  • ১৬৪১ সালে মালাবির মালাক্কা ছেড়ে দিতে ডাচদের কাছে পর্তুগিজরা আত্মসমর্পণ করে।
  • ১৬৪৮ সালে মুয়েন্সতারে স্পেন ও নেদারল্যান্ডসের মধ্যে শান্তি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।
  • ১৬৪৯ সালে কমনওলেথ অব ইংল্যান্ড প্রতিষ্ঠিত হয়।
  • ১৬৪৯ সালে ইংল্যান্ডের রাজা প্রথম চার্লসের শিরোচ্ছেদ করা হয়।
  • ১৮৪০ সালে চীনের সম্রাট ব্রিটেনের সাথে সব ধরনের বাণিজ্য নিষিদ্ধ ঘোষণা করেন।
  • ১৮৮৯ সালে ভিয়েনার যুবরাজ রুডলফ ও তার ১৮ বছরের প্রেয়সী আত্মহত্যা করে।
  • ১৯০২ সালে চীন ও কোরিয়ার স্বাধীনতার জন্য জাপানের সাথে ব্রিটেনের চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।
  • ১৯৩৩ সালে হিটলার জার্মানির চ্যান্সেলর হন এবং জার্মানিতে ফ্যাসিবাদী একনায়কতন্ত্রের উত্থান ঘটে।
  • ১৯৬৪ সালে র‌্যাঞ্জার প্রোগ্রামের অংশ হিসেবে র‌্যাঞ্জার ৬ উৎক্ষেপণ করা হয়।
  • ১৯৬৪ সালে দ: ভিয়েতনামের জেনারেল নগুয়েন খানের সাইগনে সেনা অভ্যুনত্থানের মাধ্যমে ক্ষমতা দখল করেন।
  • ১৯৭২ সালে সাহিত্যিক ও চলচ্চিত্রকার জহির রায়হান নিরুদ্দেশ হন।
  • ১৯৭২ সালে কমনওয়েলথ থেকে পাকিস্তানের নাম প্রত্যাহার করে।
  • ১৯৭২ সালে ন্যাপ, কমিউনিস্ট পার্টি ও ছাত্র ইউনিয়নের সম্মিলিত গেরিলা বাহিনীর অস্ত্র সমর্পণ করে।
  • ১৯৮২ সালে ৪০০ লাইন দীর্ঘ ১ম কম্পিউটার ভাইরাস কোড এল্ক ক্লোনার লিখেন রিচার্ড স্ক্রেন্টা। এটি এ্যাপল কম্পিউটারের বুট প্রোগ্রাম ধ্বংস করে দেয়।
  • ১৯৮৯ সালে আফগানিস্তানের কাবুলে আমেরিকার দূতাবাস বন্ধের ঘোষণা করে।
  • ১৯৯০ সালে চেকোশ্লোভাকিয়ার পার্লামেন্টে ৪ দশক পর কমিউনিস্ট পার্টি তাদের সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারায়।
  • ১৯৯৪ সালে পিটার লেকো সর্বকনিষ্ঠ গ্রাণ্ডমাস্টারের মর্যাদা পান।
  • ২০০০ সালে আইভোরী কোস্টের উপকূলে আটলান্টিক মহাসাগরে কেনিয়া এয়ারওয়েজের ফ্লাইট ৪৩১ বিধ্বস্ত হয়ে ১৬৯ জন মৃত্যুবরণ করে।

জন্ম

  • ১৮৮২ সালে জন্ম গ্রহণ করেছিলেন ফ্রাংক্‌লিন ডেলানো রুজ্‌ভেল্ট, তিনি ছিলেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ৩২তম রাষ্ট্রপতি।
  • ১৮৯৯ সালে জন্ম গ্রহণ করেছিলেন ম্যাক্স টেইলের, তিনি ছিলেন নোবেল পুরস্কার বিজয়ী দক্ষিণ আফ্রিকান ভাইরাসবিদ।
  • ১৯১৭ সালে কথাশিল্পী নরেন্দ্রনাথ মিত্র জন্ম গ্রহণ করেন।
  • ১৯৩১ সালে জন্ম গ্রহণ করেছিলেন শার্লি হাযযারদ, তিনি অস্ট্রেলিয়ান লেখক।
  • ১৯৩৭ সালে জন্ম গ্রহণ করেছিলেন ভানেসসা রেডগ্রাভে, তিনি ইংরেজ অভিনেত্রী।
  • ১৯৪৯ সালে জন্ম গ্রহণ করেছিলেন পিটার অ্যাগর, তিনি নোবেল পুরস্কার বিজয়ী আমেরিকান চিকিৎসক ও জীববিজ্ঞানী।
  • ১৯৮০ সালে জন্ম গ্রহণ করেছিলেন উইল্মার ভালদারামা, তিনি ভেনিজুয়েলীয় বংশোদ্ভূত মার্কিন অভিনেতা।
  • ১৯৮৯ সালে জন্ম গ্রহণ করেছিলেন টমাস মেজিয়াস, তিনি স্প্যানিশ ফুটবল খেলোয়াড়।

মৃত্যু

  • ১৭৮৮ সালে রোমে ব্রিটিশ রাজত্বের তরুণ উত্তরাধিকারী চার্লস এডওয়ার্ড স্টুয়ার্ন মত্যুবরণ করেন।
  • ১৯২৮ সালে মৃত্যুবরণ করেন জোহানেস ফিবিগের, তিনি ছিলেন নোবেল পুরস্কার বিজয়ী ডেনিশ চিকিৎসক।
  • ১৯৪৮ সালে ভারতের স্বাধীনতার প্রতিষ্ঠাতা ও জাতীয় নেতা মোহন দাশ করমচাঁদ গান্ধী (মহাত্মা গান্ধী) নিহত হন।
  • ১৯৭২ সালে মৃত্যুবরণ করেন জহির রায়হান, তিনি ছিলেন প্রখ্যাত বাঙালি চলচ্চিত্র পরিচালক, ঔপন্যাসিক, এবং গল্পকার।
  • ১৯৬৩ সালে মৃত্যুবরণ করেন ফ্রান্সিস পউলেঞ্চ, তিনি ছিলেন ফরাসি সুরকার।
  • ১৯৬৯ সালে মৃত্যুবরণ করেন ডমিনিক পিরে, তিনি ছিলেন নোবেল পুরস্কার বিজয়ী বেলজিয়ান ভিক্ষু।
  • ১৯৭৫ সালে শিশু সাহিত্যিক মোহাম্মদ নাসির আলী মৃত্যুবরণ করেন।
  • ১৯৯১ সালে মৃত্যুবরণ করেন জন বারডিন, তিনি ছিলেন নোবেল পুরস্কার বিজয়ী আমেরিকান পদার্থবিদ।
  • ২০১৩ সালে মৃত্যুবরণ করেন রজার রাভীল, তিনি ছিলেন বেলজিয়ান চিত্রশিল্পী।
  • ২০১৪ সালে মৃত্যুবরণ করেন ক্যাম্পবেল লেন, তিনি ছিলেন কানাডিয়ান অভিনেতা।

৩০ জানুয়ারী: মুক্তিযুদ্ধের এই দিনে-

  • পাকিস্তান পিপলস পার্টির চেয়ারম্যান জেড এ ভুট্টো সন্ধ্যা ৬টায় হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে বক্তৃতা দিতে গিয়ে বলেন, তিনি এবং তাঁর পার্টি জাতীয় ঐক্যের আওতার মধ্যে একটি কার্যক্রম ও গ্রহণযোগ্য শাসনতন্ত্র প্রণয়নের জন্য একটি স্থায়ী ফর্মুলা বের করতে যথাসাধ্য প্রচেষ্টা চালাবেন। তিনি বলেন, তাঁদের এখানে আসার উদ্দেশ্য হচ্ছে মতৈক্যের ক্ষেত্রগুলো খুঁজে বের করা এবং সাধারণ বিষয়গুলোর অনুসন্ধান করা এবং ভ্রাতৃত্ব, সমঝোতা ও সহযোগিতার মনোভাব পুনরুজ্জীবিত করার চেষ্টা করা। বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে অনুষ্ঠিত তাঁর বৈঠকের কথা উল্লেখ করে বলেন, 'বর্তমান পরিস্থিতিতে আলোচনার ক্ষেত্রে আমরা এমন এক জায়গায় এসে ঠেকেছি যা অত্যন্ত কঠিন।' আলাপ-আলোচনার নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত ভুট্টো সংবাদপত্রগুলোকে নিরপেক্ষতা অবলম্বনের অনুরোধ জানান।
  • বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও ভুট্টো এম এল নাবিক লঞ্চে চড়ে পাঁচ ঘণ্টা নৌভ্রমণ করেন। দুই নেতার ওই নৌবিহারে শরিক ছিলেন এমন একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র থেকে জানা যায় যে বঙ্গবন্ধু ও ভুট্টোর ৭০ জনের বিরাট দলসহ নৌযানটি কিছুদূর যাওয়ার পর দুই নেতা একটি আলাদা ছোট্ট লঞ্চে আরোহণ করেন। তাঁরা সেখানে দুই ঘণ্টাকাল আলোচনা করেন। তাঁদের মধ্যে এই দীর্ঘ আলোচনা সম্পর্কে দলের অন্যরা যদিও অজ্ঞ তথাপি তাঁদের মতে উভয় নেতা গত তিন দিনের বৈঠকের জের টেনে আলোচনা করেন। নৌবিহারে আওয়ামী লীগের সৈয়দ নজরুল ইসলাম, খন্দকার মোস্তাক, এ এইচ এম কামরুজ্জামান, মিজানুর রহমান, আবদুল মোমিন, নূরজাহান মোর্শেদ, বদরুন্নেসা আহমদ, সাজেদা চৌধুরী, গাজী গোলাম মোস্তফা, মোস্তফা সারওয়ার ও আওয়ামী লীগ দলীয় এমএনএ এবং এমপিএরা ছিলেন বলে এপিপিপির খবরে প্রকাশ। পিপলস পার্টির মধ্যে ছিলেন জে এ রহিম, পীরজাদা আবদুল হাফিজ, হানিফ রামে, শেখ রশিদ, রফিক রাজা এবং মেজর জেনারেল থ্যাকার ও অন্যান্য নেতা। পিপলস পার্টি সূত্রে প্রকাশ, ড. মোবাশ্বের হাসান এই দলে ছিলেন না, কারণ তিনি গতকাল লাহোরের পথে ঢাকা ত্যাগ করেন।
  • জননেতা মণি সিংহ রাজশাহী জেল থেকে এক তারবার্তায় হাবিবুর রহমানের মুক্তিতে সন্তোষ প্রকাশ করে তাঁকে অভিনন্দন জানান। এখানে উল্লেখ্য যে দেশে দ্বিতীয় দফা সামরিক আইন জারির পর মণি সিংহ ও হাবিবুর রহমানকে নিরাপত্তা আইনে গ্রেপ্তার করা হয়।
  • দুইজন তরুণ কাশ্মীর ভারতীয় এয়ারলাইন্সের একটি ফকার ফ্রেন্ডশিপ বিমান অপহরণ করে জোরপূর্বক পাইলটকে বিমানটি লাহোরে অবতরণ করতে বাধ্য করে। অপহরণকারীরা নিজেদের অধিকৃত কাশ্মীরের মুক্তিযোদ্ধাদের সংস্থা জাতীয় মুক্তিফ্রন্টের সদস্য বলে দাবি করে। বিমানে ২৮ জন যাত্রী এবং চারজন বৈমানিক ছিলেন। বিমানটি শ্রীনগর থেকে জম্মু যাচ্ছিল।